Monday, 24 February 2014

মাপা-হাসি-চাপা-কান্না, অথবা বিলাসিতা!

এই ব্যাপারটা নিয়ে আমার দিন কে দিন কনফিউশন বেড়ে চলেছে। যে, জীবনে নেহাতই নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র, যেটাকে কিনা ফুড-ক্লথ-শেল্টার-মেডিসিন বলে, সেটা ছাড়া আর ঠিক কোন কোন জিনিসটা অবশ্য প্রয়োজন আর কোনগুলো বাহুল্য। মানে, হলে মন্দ নয়, কিন্তু নাহলেও হয়ত চলে যায়।



আমার জীবনে এই মুহূর্তে টাকাপয়সা মোটামুটি আছে। সত্যি বলতে কি, আমার মধ্যবিত্য মানসিকতায় হয়ত প্রাচুর্যই বলা চলে। (কুসংস্কার আমার বিশেষ নেই, তবু একবার খাটের কাঠটা ছুঁয়ে নিলাম। বলা যায় না, চিত্রগুপ্ত হয়ত খাতা বাগিয়ে এই মুহূর্তে ঠিক আমার ওপরেই চোখ রাখছে!) মানে, অন্তত যেমনভাবে চলছে সেরকম চললে যা যা শখ এবং কর্তব্য আছে, বড়সড় বিপদ কিছু না হলে সেসব মোটামুটি মেটানো যাবে। একটা অবশ্য সুবিধাও আছে, যে আমার শখ ব্যাপারটা বেশ কম। দামি ফোন টোন দেখলে লোভ এর চেয়ে ভয়টাই বেশি পাই। বুঝি কম। খুব ঘ্যাম জামাকাপড় দেখলে মনে হয় ওসব মডেলদেরই মানায়, আমার যা কমপ্লেক্স এবং কমপ্লেক্সন তাতে আমার শতহস্ত দূরে থাকাই ভাল। তো যা হোক, এইসব কারনে আয়টা ব্যয়কে বিশেষ থ্রেট করে না জেনারেলি।

(প্রয়োজনের কথা বলতে গিয়ে প্রথমেই কেন টাকাপয়সা নিয়ে একটা পারাগ্রাফ নামিয়ে ফেললাম? মেন্টাল কন্ডিশনিং? শো অফ? নাকি, নেহাতই ইন্সিকিউরিটি? কি জানি!)

এবারে হল গিয়ে, সংসার। বর আছে, একটা ভীষণ মিষ্টি ফুটফুটে মেয়ে আছে। পৃথিবীর সবচেয়ে সুন্দর বাচ্চা। যেমন প্রত্যেক বাবা-মায়ের কাছে নিজের বাচ্চা হয় আর কি। আর ভীষণ দামি আর ততধিক মুল্যবান একজন হোলটাইমার আছে। যে না থাকলে জীবনটা জাস্ট চলত না। তা, সংসার বলতে মোটামুটি এই। সময়ের অভাব, একে অপরের সাথে দেখা হওয়ার অবকাশ কম, কথা বলার লোকের অভাব, যে যার মত প্লেট নিয়ে খেয়ে নেওয়া, ব্যাগ নিয়ে চলে যাওয়া, টিভি দেখে নেওয়া ইত্যাদি। মানে আজকালকার দিনের হিসেবে যাকে বলে স্বাভাবিক, তাই।

দিনের মধ্যে বেশ খানিকটা সময়ে নিজের কাছ থেকে নিজেই চুরি করে নিয়ে ফেসবুক। আজীবনের যাবতীয় পরিচিতদের ছবি ও জীবনের নির্বাচিত অংশ দেখা ও দেখানো। মাপা হাসি চাপা কান্না গোছের ব্যাপার আর কি।

কয়েকটা শখ আছে। সেগুলো পূরণ করার সময়ের যথেচ্ছ অভাব আছে। ঠিক যেমন হওয়ার কথা, ঠিক যেমন না হওয়াটাই অস্বাভাবিক।

তারও মধ্যে সময় চুরি করে নিয়ে সেগুলো এক-আধটুকু করা।

বাঙ্গালিয়ানাও আছে খানিক, প্রবাসে দৈবের বশে গোছের। অর্থাৎ, দুর্গাপুজো, কালীপূজো ও দিওয়ালীর সংমিশ্রণ, মায় সরস্বতী পুজোও আছে।

যা যা থাকার কথা, আছে।

যা যা থাকার কথা নেই, নেই।

তাহলে বস, চাপটা কোথায়?

সিরিয়াসলি!